প্রযুক্তির ক্ষেত্রে 3 জন কমবয়সী ভারতীয় অর্জনকারী যার সম্পর্কে আপনার জানা প্রয়োজন!

অসাধারণ হওয়ার জন্য কোন বয়স সীমা নেই| যখন আপনি প্রযুক্তির বিভিন্ন প্রবর্তক সম্পর্কে জানতে পারেন, তাদের মধ্যে কিছু আপনার সমবয়সী ও আছে, এমনকি আপনার চাইতে ছোট ও হতে পারে| এই কমবয়সী অর্জনকারীরা প্রযুক্তির ক্ষেত্রে তাদের নতুন আবিষ্কার এবং নতুন প্রবর্তন দিয়ে প্রত্যেককে গর্বিত করছে|

তাদের মধ্যে কয়েকজন সম্পর্কে জানার এটিই সময়|

 

1. টেনিথ আদিত্য – অসামান্য আবিষ্কারক

নিয়ন্ত্রণযোগ্য বৈদ্যুতিক এক্সটেনসন বোর্ড এবং কলাপাতা-র সংরক্ষণ প্রযুক্তি সম্পর্কে কখনো শুনেছেন কি? এই আবিষ্কারগুলির পেছনে রয়েছে টেনিথ নামক একজন ছেলে| ইতিমধ্যে তিনি 17 টি আবিষ্কার করে ফেলেছেন| তাকে 2013 সালে রাষ্ট্রপতি ভবনে প্রশিক্ষণ ও দেওয়া হয়েছে|

 

2. অঙ্গদ দরিয়ানি – পরবর্তী এলন মাস্ক

মুম্বাইয়ের কিশোর অঙ্গদ দরিয়ানি অন্ধদের উদ্দেশ্যে একটি ভার্চুয়াল ঈ-রিডার, একটি নৌকা যেটি সৌর শক্তি দ্বারা চলে, একটি স্বয়ংক্রিয় বাগান করার প্রণালী যেটিকে গার্ডুইনো বলা হয় এবং ভারতের সবচেয়ে সস্তা দামের থ্রিডি প্রিন্টার শার্কবট তৈরি করার জন্য মুক্ত-সোর্স সফটওয়্যার ব্যবহার করেছে| সে স্কুল যাওয়া বন্ধ করে শিশুদের সাশ্রয়ী মূল্যের স্বয়ংক্রিয়(DIY) কিটস বিক্রয় করার জন্য তাঁর নিজের কিট কোম্পানি শুরু করেছে|

 

3. আনন্দ গঙ্গাধরন এবং মোহক ভাল্লা – প্রতিভাবান জুড়ি

আনন্দ এবং মোহক, দিল্লির দুজন বন্ধু একটি জুতো আবিষ্কার করেছেন যেটি মোবাইলের বহনযোগ্য চার্জারের মত ও কাজ করে| তারা এটিকে “চলন্ত মোবি চার্জার” বলেন যেটি অধিকাংশ চার্জার দ্বারা উৎপাদিত 5 ভোল্ট বিদ্যুত-এর পরিবর্তে 6 ভোল্ট বিদ্যুত উৎপাদন করে|

 

এই কমবয়সী প্রবর্তকরা সৃজন করা এবং নতুনত্ব আনার জন্য প্রযুক্তির সঠিক ব্যবহার করেছেন| তারা সজীব প্রমাণ যে প্রযুক্তির সাহায্যে, বয়স কিছুই হোক না কেন, অর্জন করার কোনো সীমা নেই| যখন অনুপ্রাণিত হওয়ার জন্য এত কিছু রয়েছে, তাহলে এই মজার প্রযুক্তির খেলা দিয়ে প্রযুক্তি নিয়ে আপনার  নিজস্ব অভিযান শুরু করুন|

কোন বয়স কম নয় এবং কোন স্বপ্ন খুব বেশি বড় নয়| এখনই শুরু করুন!